সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০

শিরোনাম

  ঢাকা থেকে প্রকাশিত জনপ্রিয় দৈনিক কালের কথা পত্রিকার জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা,উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭০১৭০৩৪৪২ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

ব্যক্তিগত নয়, দৃষ্টি দলগত নৈপুণ্যে


ব্যক্তিগত নয়, দৃষ্টি দলগত নৈপুণ্যে

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৭   পঠিতঃ 192024


নিলা, নাজমা, মাহমুদা, মারিয়ারসহ সব ফুটবলার অনুশীলন শেষে টিম বাসে উঠে গেছে। কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন, নেপালের ম্যাচে হ্যাটট্রিক পাওয়া তহুরা খাতুন, আঁখিসহ একাধিক ফুটবলার মাঠে দাঁড়িয়ে। সংবাদ মাধ্যম একটু দাঁড়াতে বলেছে। ক্ষুদে নারী ফুটবলারদের কণ্ঠে আত্মবিশ্বাস আছে। একটা জয় বাড়তি প্রেরণা দিচ্ছে কিন্তু সেটাকে ভুলে নতুন ম্যাচ মাথায় রেখে নতুনভাবে মাঠে নামার ছক আঁকছে। আজ ভুটানের বিপক্ষে খেলা ভুটান যতই শক্তিশালী কিং দুর্বল হোক প্রতিপক্ষকে শক্তিশালী মনে করেই লড়াইয়ে নামার প্রস্তুতি নিয়েছে দেশের নারী ফুটবলের আগামীদিনের খেলোয়াড়রা। নিজেদের পারফরম্যান্স কতোটা ভালো করা যায় তা নিয়ে লড়াই তো আছেই নিজের মধ্যেও শপথ নিয়েছেন খেলোয়াড়রা। খেলোয়াড়রা বলছিলেন- নিজেদের পারফরম্যান্সের চেয়ে দল বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

 

 নেপালের বিপক্ষে দুই গোল করেছেন স্ট্রাইকার আনুচিং মার্মা। হ্যাটট্রিক করার সুযোগ ছিল। কিন্তু সুযোগ পেয়েও করতে পারেনি। কোচ তাকে বসিয়ে দিয়েছিল পায়ে ব্যথার কারণে। তা না হলে আনুচিংয়ের গোল সংখ্যাও বাড়তে পারতো। এটা নিয়ে একটা আফসোস ছিল খেলা শেষে। কিন্তু সেই আফসোস রাত গড়িয়ে কাল সকালেই উধাও হয়ে গেছে। তার চোখে এখন দলটাই বড় কথা।

 

হ্যাটট্রিক পেয়েছেন তহুরা খাতুন। শুধু হ্যাটট্রিকই না। এই কুশলী ফুটবলার হ্যাটট্রিকের হ্যাটট্রিক করেছেন। টানা তিনবার আন্তর্জাতিক ফুটবলে হ্যাটট্রিক করলেন তহুরা খাতুন। এবার নেপালের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করার আগেও গতবছর তাজিকিস্তানে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ বাছাই টুর্নামেন্টের খেলায় বাংলাদেশ ৩-১ গোলে ভারতকে হারায়। ফাইনালে ৪-০ গোলে ভারতকে হারায় তহুরা হ্যাটট্রিক করেন। নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশ ৯-০ গোলে জিতেছিল। তহুরা হ্যাটট্রিক করেছিলেন। আন্তর্জাতিক ম্যাচে সবমিলিয়ে তহুরার গোল এখন ১২টি। তারপরও ময়মনসিংহের এই মেয়েদের মধ্যে বাড়তি কোনো উচ্ছ্বাস নেই। নেপালের বিপক্ষে এবার দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছেন এই বল প্লেয়ার। তাকে কেউ বলছেন মেসি, কেউ বলছেন রোনালদো। আর তহুরা বললেন, ‘এই যে হুনুইন। এইসব কতা কইন না যে। না খেলতো পারলে মাইনসে বহা দিবো। তহন বালা লাগতো না। আমনেরা মেছিও কইতেন না।’ তহুরার ডান হাতে ব্যথা লেগেছে। টাওয়ালে বরফ দিয়ে হাতে পেঁচিয়ে রেখেছেন দ্রুত সারিয়ে তোলার জন্য। তারই বয়সের সতীর্থ ফুটবলার সাবিনা কিছুদিন আগে হঠাত্ অসুস্থ হয়ে মারা গেছে। অকাল মৃত্যুশোকে অসুস্থ হয়ে পড়ে তহুরা। কাল বলছিলেন,‘সাবিনা মারা যাওয়ায় আমি অসুস্থ হয়ে যাই। সুস্থ হতে সময় লেগেছিল। নেপালকে হারানোর পর তার কথা খুব মনে হয়।’

 

দলের ডিফেন্ডার আঁখি খাতুন। সাড়ে ৫ ফুট লম্বা। বাংলাদেশ সেটপিস পেলে রক্ষণ ছেড়ে দৌড়ে যান হেড করতে। পায়ের শট শক্তিশালী। সিরাজগঞ্জের শাহাদতপুরের পারকোলা গ্রামের আকতার হোসেন এবং নাসিমা বেগমের মেয়ে আঁখি। বিকেএসপিতে নবম শ্রেণীতে পড়ছেন। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দলের দীর্ঘদেহী এই ডিফেন্ডার আগলে রেখেছেন দলকে।  

কালেরকথা/বিডি

মন্তব্য করুন

Logo

সম্পাদক: মাসুম বিল্লাহ কাওছারী

সিডরো মিডিয়া গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে রিনা দাশ কর্তৃক উত্তরা রেসিডেন্সিয়াল এলাকা ঢাকা থেকে প্রকাশিত

 01701703442   ||   info@dailykalerkotha.com