সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০

শিরোনাম

  ঢাকা থেকে প্রকাশিত জনপ্রিয় দৈনিক কালের কথা পত্রিকার জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা,উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭০১৭০৩৪৪২ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

কবিরাজ মনির এর দুটি কবিতা


কবিরাজ মনির এর দুটি কবিতা

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৯   পঠিতঃ 137214


হায় হুজুগে আমজনতা!

এক ধরনের ব্যবসায়ীরা জন্ম হারামজাদা ;
এক ধরনের আমজনতা গাধার চেয়ে গাধা।
হারামীরা এই গাধাদের ঘোলা জলে নামায় ;
নিত্যপন্য মজুদ করে কোটি টাকা কামায় ।

গুজব শুনে এই জনতা দৌড়ে ওঠে ছাদে ;
শূন্যের ওপর লাফ দিয়া কয়, লোক দেখেছি চাঁদে!।
লাফের চোটে কত্ত জনার পালায় পরান পাখি ;
আমজনতার আহম্মকী আর যে কতো বাকী!।

পেয়াজ নামে চিল্লা দিয়া ভারী করলো পবন ;
এখন শুনি চিল্লাইতেছে- লবন! লবন! লবন!।
শামসুর রাহমান লিখেছিলেন,"কান নিয়েছে চিলে" ;
-----কী যে ভাবি! কী যে লিখি!... কিচ্ছু নাহি মিলে।
-কোনো অর্জন ফল দেবে না, বিফল স্বপ্ন-সুযুগ ;
এই জনতার মগজ থেকে না যায় যদি হুজুগ ।

খাদ্য- বস্ত্র বাদ রাখিয়া খাইতেছিলো পেঁয়াজ ;
হঠাৎ মাথায় ভূত চাপিলো, লবন খাবে সে আজ!।
পেয়াজ না হয় বেশি দিয়ে তরকারি যায় রাঁধা ;
লবণও কি বেশি খাবে! কোনসে এমন গাধা? ।
নয়তো কেনো মণে মণে, কিনছে লবন দেখো! ;
'হায় হুজুগে আমজনতা' চিন্তা করতে শেখো।
হারামীরা ঢোল পিটালো- লবন নাইরে দেশে ;
অমনি শুরু দৌড়াদৌড়ি! লবণ কিনছো এসে!।

রাষ্ট্রযন্ত্র জিম্মি বুঝি! টাল হলো মাল খেয়ে! ;
---মজুদধারী শক্তিশালী প্রধানমন্ত্রীর চেয়ে! ।
আল্লাহ-হরি- বুদ্ধ-যিশু যে যেখানে আছে ;
গুজব শুনলে কেউ থাকে না এই জনতার কাছে।

পদ্মা সেতু, উন্নত দেশ- থাকুক পরের ভাগে ;
এই জনতার মগজ ধোলাই করতে হবে আগে।

 

পেঁয়াজ নামের জিকির 

পেঁয়াজ নামে যত জিকির চলছে ডানে বামে ;
এতো জিকির কেউ করে না আল্লাহ নবীর নামে।
মুসলমানরা তসবি ছাড়াই পেঁয়াজ পেঁয়াজ করে;
পেঁয়াজ খাওয়া সুন্নাত নাকি ফরজ পর্যায় পড়ে? ।
নবীজি কি পেঁয়াজ খেতেন, কোরান খুললে পাবো ;
প্রধানমন্ত্রী পেঁয়াজ খান না, আমরা কেনো খাবো!।
হিন্দুরাও তো পেঁয়াজ খায় না, তবু মজায় রাঁধে,
পেয়াজ কিনতে কেনো মুসলিম নারী-পুরুষ কাঁদে।
কি ক্ষতি হয় দু' একটা মাস, রাঁধলে পেঁয়াজ ছাড়া ;
পেঁ'জের জন্য বাঙালি ক্যান এত্ত পাগলপাড়া!।

কত ইস্যু পড়ে আছে, হয় না তাতে কিছু ;
হঠাৎ সবাই কী কারণে লাগলো পেঁ'জের পিছু! ।
-মনে তো হয় পেঁ'জের জন্য শুরু হবে যুদ্ধ ;
পেঁয়াজ না হলে, সবই জলে! সব কিছু অশুদ্ধ।
এতোই যদি বীরের জাতি পেঁয়াজ ছাড়ি সবে ;
"আমরা যদি না জাগি মা কেমনে সকাল হবে"।
---দেখি শালার মজুদধারী ক্যামনে মজুদ রাখে ;
কেউ দিবে না কোনো সাড়া 'পেঁয়াজ বর্জন' ডাকে।
----যুদ্ধ করা খুবই সহজ পেঁয়াজ ছাড়ার চেয়ে ;
কারো কারো মাথাই খারাপ, পেঁ'জ না খেতে পেয়ে।

আমরা এতো 'পেঁ'জখোর' বলে, ব্যবসায়ীরা অটল ;
পেঁয়াজের দাম কমাবে না, তুললে কেহ পটল।
কৃত্রিম সংকট তৈরি করে, যেই মুনাফা পাবে ;
সেই মুনাফায় মহাজনরা ওমরা হজ্বে যাবে।
"আল্লাহ ব্যবসা হালাল করছেন" সুদ করেছেন হারাম ;
------হজ্ব করিলে বেস্ত পাবে! বেহেশতে কী আরাম।

আমজনতাই ঠকে সদা, ঠকছে পেঁ'জের দামে ;
যতই ঠকি চলবে জিকির- 'পেঁয়াজ পেঁয়াজ' নামে।

 

 

কালেরকথা/বিডি

মন্তব্য করুন

Logo

সম্পাদক: মাসুম বিল্লাহ কাওছারী

সিডরো মিডিয়া গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে রিনা দাশ কর্তৃক উত্তরা রেসিডেন্সিয়াল এলাকা ঢাকা থেকে প্রকাশিত

 01701703442   ||   info@dailykalerkotha.com